• E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন

×

সুস্থ, সবল মেধাবী প্রজন্মের জন্য নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নেই : খাদ্য নিরাপত্তা নীতি বিষয়ক আঞ্চলিক কর্মশালায় বক্তারা

  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ১২৯ পড়েছেন

ইউএসএআইডি’র ফিড দ্যা ফিউচার কর্মসূচির অধীনে বাস্তবায়নাধীন ফিড দ্যা বাংলাদেশ পলিসি লিংক অ্যাগ্রিকালচারাল পলিসি অ্যাক্টিভিটি এর আয়োজনে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নীতি বিষয়ক আঞ্চলিক কর্মশালা আজ (সোমবার) খুলনার হোটেল সিটি ইন-এ অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ ফজলুল হক। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার জিনাত আরা আহমেদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান, খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. শেখ জুলফিকার হোসেন, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন ও পলিসি লিংকের ফিল্ড প্রোগ্রাম ডিরেক্টর নাসিম আলীম। কর্মশালায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফিড দ্যা ফিউচার বাংলাদেশ পলিসির রিজিওনাল প্রোগ্রাম ম্যানেজার মোঃ হাসেম আলী আকাশ।

অতিথিরা বলেন, উৎপাদন থেকে খাবার টেবিল পর্যন্ত সকল খাদ্য নিরাপদ করতে হবে। সুস্থ, সবল মেধাবী প্রজন্মের জন্য নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নেই। কৃষিজপণ্য, মাছ এবং প্রাণিসম্পদের যথাযথ ব্যবস্থাপনা নিরাপদ খাদ্যের গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। তাঁরা বলেন, সাধারণ মানুষের সচেতনতা এবং ভোক্তার দৃষ্টিভঙ্গি নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে অন্যতম ভূমিকা পালন করে। উৎপাদনশীলতা, সংরক্ষণ, বিপণন এবং ভোক্তা পর্যায়ে নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা থাকতে হবে।

খাদ্য উৎপাদনে অতিরিক্ত কীটনাশক ও হরমোনের ব্যবহার না করা, খ্যাদ্যের মান নির্ণয়ের প্রয়োজনীয় ল্যাব স্থাপন, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে উৎপাদন পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টি, খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ, পুষ্টিসমৃদ্ধ খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত, মাঠ পর্যায়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের আইন প্রয়োগের ক্ষমতা বৃদ্ধি ও মনিটরিং জোরদার, বিভিন্ন দপ্তরের মধ্যে সমন্বয়সহ বিভিন্ন বিষয়ে কর্মশালায় আলোচনা হয়।

ইউএসএআইডি’র ফিড দ্যা ফিউচার বাংলাদেশ পলিসি লিংক অ্যাগ্রিকালচারাল পলিসি অ্যাক্টিভিটি একটি পাঁচ বছর মেয়াদি কার্যক্রম, যার লক্ষ্য বাংলাদেশের কৃষি সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম এবং প্রতিষ্ঠানগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি করা এবং নীতি প্রণয়ন প্রক্রিয়া উন্নত করা। যা অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে সাহায্য করবে। জনগণ এবং কৃষিনীতি ব্যবস্থার ভেতর সহনশীলতা জোরদার এবং নারী ও শিশুসহ একটি বৃহত্তর সুস্থ সবল জনগোষ্ঠী তৈরি করতে সহায়ক হবে।

কর্মশালায় সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও উদ্যোক্তারা অংশ নেন

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA