• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

×
সংবাদ শিরোনাম :
দেশের বিভিন্ন স্থানে ৫.৪ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত রামপালে কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মা মেয়ে আহত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো “সবুজ পৃথিবীর সন্ধানে” প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান খুলনায় তিনদিনের কর্মসুচি – শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এঁর ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী খুমেক হাসপাতালের সামনে থেকে ৯টি দেশি অস্ত্র উদ্ধার যশোরে মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন “ত্রান চাইনা,টেকসই বেড়িবাঁধ চাই”  সরকার জরুরী ভিত্তিতে বেঁড়িবাঁধ সংস্কার করে জলবন্দি মানুষদের মুক্ত করবে-ভুমিমন্ত্রী  ঘূর্নিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন সরকার-ত্রান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মহিববুুর রহমান পাউবোর ব্যর্থতায় সহস্রাধিক মানুষের সেচ্ছাশ্রমে মেরামতের পর পরই ভেঙে গেল কয়রার বেঁড়িবাঁধ পরমানু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী খুলনায় ‘দেশের অগ্রগতিতে বিজ্ঞান চর্চা’ শীর্ষক আলোচনা সভা

প্যান্ডোরা পেপারসে আরও ৩ বাংলাদেশির নাম

  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ৪ মে, ২০২২
  • ১২৬ পড়েছেন

প্যান্ডোরা পেপারসে আরও ৩ বাংলাদেশির নাম এসেছে। নিজ দেশের বাইরে গোপনে আর্থিক বিনিয়োগ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্যান্ডোরা পেপারসে যাদের নাম এসেছে তারা হলো এস হেদায়েত উল্লাহ, এস রুমি সাইফুল্লাহ এবং শাহেদা বেগম শান্তি।

ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টসের (আইসিআইজে) গতকাল মঙ্গলবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে এই ৩ জনের নাম পাওয়া গেছে। এর আগে প্যান্ডোরা পেপারসে আরও ৮ বাংলাদেশির নাম প্রকাশিত হয়।

বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলে গোপন বিনিয়োগ ও লেনদেনের তথ্য ফাঁস করা হয় প্যান্ডোরা পেপারসে।

প্রতিবেদনে নাম আসা ৩ বাংলাদেশির মধ্যে হেদায়েত উল্লাহ ও রুমি সাইফুল্লাহ হংকংভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ট্রান্সগ্লোবাল কনসালটিংয়ে এবং আরও একটি প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করেছেন বলে জানা গেছে।

শাহেদা বেগম শান্তি জাস লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করেছেন।

আইসিআইজে তদন্তে জানা যায়, হেদায়েত উল্লাহ ও রুমি সাইফুল্লাহ ঢাকার বারিধারা ডিওএইচএসের বাসিন্দা এবং শাহেদা বেগম শান্তি সিলেটের শাহজালাল এলাকায় থাকেন।

গত বছরের ৩ অক্টোবর প্যান্ডোরা পেপারস প্রথম প্রকাশিত হয়।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে প্রকাশিত প্যান্ডোরা পেপারসের তৃতীয় প্রতিবেদনে ৯ হাজারের বেশি অফশোর (নিজ দেশের বাইরে) প্রতিষ্ঠান, ট্রাস্ট ও ফাউন্ডেশনের ফাঁস হওয়া নথি আছে।

তবে, প্যান্ডোরা পেপারসে নাম এলেই কেউ যে অবৈধবভাবে অর্থ উপার্জন করছেন বা পাচার করছেন, তা নিশ্চিত হওয়া যায় না।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এধরনের আরো সংবাদ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA