• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন

×
সংবাদ শিরোনাম :
দেশের বিভিন্ন স্থানে ৫.৪ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত রামপালে কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মা মেয়ে আহত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো “সবুজ পৃথিবীর সন্ধানে” প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান খুলনায় তিনদিনের কর্মসুচি – শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এঁর ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী খুমেক হাসপাতালের সামনে থেকে ৯টি দেশি অস্ত্র উদ্ধার যশোরে মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন “ত্রান চাইনা,টেকসই বেড়িবাঁধ চাই”  সরকার জরুরী ভিত্তিতে বেঁড়িবাঁধ সংস্কার করে জলবন্দি মানুষদের মুক্ত করবে-ভুমিমন্ত্রী  ঘূর্নিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন সরকার-ত্রান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মহিববুুর রহমান পাউবোর ব্যর্থতায় সহস্রাধিক মানুষের সেচ্ছাশ্রমে মেরামতের পর পরই ভেঙে গেল কয়রার বেঁড়িবাঁধ পরমানু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী খুলনায় ‘দেশের অগ্রগতিতে বিজ্ঞান চর্চা’ শীর্ষক আলোচনা সভা

কপোতাক্ষ নদী খননে অববাহিকার ২০ লাখ মানুষের ভাগ্য বদল

  • প্রকাশিত সময় : রবিবার, ২৬ জুন, ২০২২
  • ৩৫৫ পড়েছেন

মহাকবি মাইকেল মধুসুধন দত্তের স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষ নদ খননের ফলে ভাগ্য বদলে গেছে নয় উপজেলার মানুষের। এই নদে আগের মত চলছে জোয়ার ভাটা। ফলে সাতক্ষীরা, যশোর ও খুলনা জেলার কপোতাক্ষ নদের কোল ঘেষে বসবাসরত ২০ লক্ষ মানুষ জলাবদ্ধতার হাত মুক্তি পেয়েছে। মানুষ এখন বাড়িতে বসবাস করছে। এই এলাকার মাঠ সবুজের সমারোহ কপোতাক্ষ পাড়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য দুই পাড়ে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন ধরণের গাছ। অনেক জায়গায় তৈরি হয়েছে মিনি পার্ক। সাধারণ মানুষ অবসর সময়ে এসব জায়গায় ঘুরতে আসে। এলাকাবাসির দাবি কপোতক্ষ নদ যেন অবৈধ দখল মুক্ত থাকে আর নদে যেন পলি জমে ভরাট না হয়।

কপোতাক্ষ তীরে বসবাসরত শামীম হোসেন, খলিল, জামালউদ্দীন, হোসেন আলী, খায়রুল জানান, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষ নদ। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এই নদে পলি জমে ৮৮ কিলোমিটার ভরাট হয়ে যায়। যার কারণে অবৈধ দখলদাররা একের পর এক নদের জায়গা দখল করতে থাকে। প্রতি বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হত কপোতাক্ষ অববাহিকায়। বছরে ৯ মাস জলাবদ্ধতায় কবলে থাকতো সাতক্ষীরার জেলার কলারোয়া, তালা, আশাশুনি উপজেলা, যশোর জেলার চৌগাছা, ঝিকরগাছা, কেশবপুর, মনিরামপুর উপজেলা, খুলনা জেলার পাইগাছা, কয়রা ডুমুরিয়া উপজেলা। মানুষ বাড়ি ঘর ছেড়ে অনত্র বসবাস করতো। এলাকার স্কুল কলেজ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সর্বশান্ত হয়ে গিয়েছিল এই এলাকার মানুষ। সরকার ২শত ৬২ কোটি টাকা ব্যায় করে এই নদ খনন করেছে। এখন এই নদে আগেরমত জোয়ার ভাটা চলছে। কপোতাক্ষ নদ এলাকার ২০ লক্ষ মানুষ জলাবদ্ধতার হাত থেকে মুক্তি পেয়েছে। ফসলে ফসলে ভরে গেছে কপোতাক্ষ পাড়। কপোতাক্ষ পাড়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য দুই ধারে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন ধরণের গাছ। অনেক জায়গায় তৈরি হয়েছে মিনি পার্ক। সাধারণ মানুষ অবসর সময়ে এসব জায়গায় ঘুরতে আসে।মানুষ এখন স্বাভাবিক জীবন যাপন করছে। এই এলাকার মানুষের দাবি কপোতাক্ষ নদের পাড় যেন অবৈধভাবে দখল না হয়। আর নদে পলি জমে যেন ভরাট না হয়। সেজন্য আবারও এই পলি অপসারণের দাবি জানান এলাকার সাধারণ মানুষ।

সাতক্ষীরার তালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ জানান, কপোতাক্ষ ভরাট হওয়ায় ফসল হত না। অনাহারে, অর্ধাহারে থাকতে হয়েছে মানুষকে। তালা উপজেলাসদর জলাবদ্ধতা থাকার কারণে অফিসাররা পর্যন্ত অফিসে আসতে পারতো না। নিচ তলার কাগজপত্র পানিতে ভিজে যেত। কপোতাক্ষের সাথে সংযুক্ত খাল গুলো খনন করা হয়েছে। এখন আর সেই জলাবদ্ধতা নেই।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন র্বোড-১ নির্বাহি প্রকৌশলি আবুল খায়ের জানান, যশোর থেকে কপোতাক্ষ নদ খনন করা হয়েছে। এই নদ খননের সুফল কপোতাক্ষঅববাহিকার মানুষ পাচ্ছে।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোডের্র প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মশিউর রহমান জানান, নানা চড়াই উৎরাই পেড়িয়ে কপোতক্ষ নদ খনন করা হয়। যশোরের মনিরামপুর উপজেলার চাকলা ব্রীজ থেকে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাকিমারা পর্যন্ত খনন কাজ হয়। এই নদ খননের ফলে এলাকার ৪০ লক্ষ মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে সুফল ভোগ করছে ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এধরনের আরো সংবাদ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA