×

কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ির দারোগা কর্তৃক হুমকি; অর্থ দাবী

  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১৬৩ পড়েছেন

কপিলমুনিতে নির্মাণ বিপনি মালিক প্রভাবশালী বিপ্লব সাধুর অঙ্গুলী হেলেনে পুলিশের এস আই সাহাজুল কর্তৃক বরফ ব্যবসায়ীকে হুমকি ধামকি ও সর্বশেষ ২০ হাজার টাকা দাবির ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন করেছে কপিলমুনি বাজারের বরফমিল মালিক বিধান বিশ্বাস নামে এক ভুক্তভোগী। রবিবার ১৭ সেপ্টেম্বর কপিলমুনি প্রেসক্লাব মিলনায়তনে উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে হাজির হয়ে বিপ্লব সাধু ও পুলিশের এ কর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি। জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি কপিলমুনি বাজারের একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী, বাজারের উত্তর প্রান্তে অামার বরফকল প্রতিষ্ঠানসহ ব্যবসা রয়েছে। আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন ও রানীকুঠিরের পার্শ্বে আমার নিজস্ব একখণ্ড জমি রয়েছে, যেখানে বিভিন্ন ফলজ বৃক্ষ রয়েছে। এরই পার্শ্বে কপিলমুনি বাজারের প্রভাবশালী স্টীল ব্যবসায়ী নির্মাণ বিপনির মালিক স্বর্গীয় বিশ্বনাথ সাধুর পুত্র প্রভাবশালী বিপ্লব সাধুর “সাধুস্টীল কর্পোরেশনের ভবনের কাজ চলমান। বিগত ১২ সেপ্টেম্বর’২৩ মঙ্গলবার আমাকে না জানিয়ে বিপ্লব সাধুর নির্দেশে তার কর্মচারী ও নিজস্ব লোকজন আমার নিজ জমির সীমানায় লাগানো ৩টি মাঝারি সাইজের আমগাছ কেটে ফেলে। এ ঘটনায় আমি রীতিমতো হতচকিৎ হয়ে কিং কর্তব্য বিমূড় হয়ে পড়ি। এবং এলাকার মানুষকে জানালে বিপ্লব নিজের বেআইনি কাজকে সামাল দিতে এবং আমি কোন আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করছি কিনা এ আশংকায় বর্তমানে পুলিশকে দিয়ে হয়রানি করতে উঠেপড়ে লেগেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৪/৯/২৩ তারিখ বেলা আনু: ১১ ঘটিকার সময় স্থানীয় কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ির দারোগা এস আই সাহাজুল ইসলাম (সাজু) সঙ্গীয় ফোর্সসহ আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বরফমিলে এসে আমাকে তাৎক্ষণিক পাইকগাছা থানা ওসি সাহেবের ডেকেছে বলে যেতে বলেন। হঠাৎ জরুরী এমন নির্দেশে কি করবো ভেবে পাচ্ছিলাম না। তিনি বলেন, এক পর্যায় জানার জন্য আমি সাহাজুল স্যারকে বলি স্যার, ওসি স্যার আমাকে কোন বিষয়ে ডেকেছেন? তখন তিনি রাগান্বিত হয়ে কিছু না জানিয়ে আমাকে তাদের সাথে যেতে বলেন। আমি থানায় সাক্ষাতের জন্য একদিন সময় প্রার্থনা করিলে এস আই সাহাজুল ফাঁড়িতে ফিরে যান। পরবর্তীতে বেলা ১ টার সময় এস আই সাহাজুল পুনরায় আমার বরফমিলে আসেন এবং আমাকে ধমকা ধমকি করেন। এক পর্যায় আমি সাহাজুল স্যারকে বলি স্যার আমি কি অপরাধ করেছি, আমাকে ক্ষমা করেন। তখন তিনি পাশে ডেকে নিয়ে বলেন, যদি তুমি বিশ হাজার টাকা দাও তবে আমি মিটাতে পারি। তোমাকে থানায় ওসি সাহেবের কাছে যাওয়া লাগবে না। এমন পরিস্থিতিতে আমিসহ আমার পরিবার ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছি। যে কারণে বিপ্লব সাধুর অপকৌশল ও অঙ্গুলি হেলেনে পুলিশ অফিসার সাহাজুলের এহেন কর্মকাণ্ডের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA