• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন

×
সংবাদ শিরোনাম :
দেশের বিভিন্ন স্থানে ৫.৪ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত রামপালে কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মা মেয়ে আহত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো “সবুজ পৃথিবীর সন্ধানে” প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান খুলনায় তিনদিনের কর্মসুচি – শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এঁর ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী খুমেক হাসপাতালের সামনে থেকে ৯টি দেশি অস্ত্র উদ্ধার যশোরে মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন “ত্রান চাইনা,টেকসই বেড়িবাঁধ চাই”  সরকার জরুরী ভিত্তিতে বেঁড়িবাঁধ সংস্কার করে জলবন্দি মানুষদের মুক্ত করবে-ভুমিমন্ত্রী  ঘূর্নিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন সরকার-ত্রান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মহিববুুর রহমান পাউবোর ব্যর্থতায় সহস্রাধিক মানুষের সেচ্ছাশ্রমে মেরামতের পর পরই ভেঙে গেল কয়রার বেঁড়িবাঁধ পরমানু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী খুলনায় ‘দেশের অগ্রগতিতে বিজ্ঞান চর্চা’ শীর্ষক আলোচনা সভা

ছয় মাসেও প্রাপ্য অর্থ পাননি ২৬৬১ শ্রমিক

  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৫৫ পড়েছেন

খুলনা বিভাগের মাগুরা জেলার মহম্মদপুরে ইজিপিপি প্রকল্পের আওতায় অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান ৪০ দিনের কর্মসূচির কাজ শেষ হয়েছে প্রায় ছয় মাস। মজুরি না পেয়ে ২৬৬১ হতদরিদ্র শ্রমিক চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। তারা প্রতিদিনই উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে ঘুরছেন। ভুক্তভোগীরা করছেন তাদের সমস্যা নিয়ে অভিযোগ।
এদিকে, অর্থ বরাদ্দ বিলম্বিত হবার নির্দিষ্ট কারণও জানাতে পারেননি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। জানা যায়, অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি)—র ২০২৩—২৪ অর্থবছরে কাজ শুরু হয় ১১ নভেম্বর ২০২৩ এবং শেষ হয় চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি। উপজেলায় ৪৩টি প্রকল্পে মোট ২৬৬১ জন উপকারভোগী শ্রমিক কাজ করেছেন। যার মধ্যে সদর ইউনিয়নে ৫টি প্রকল্পে ৩১৭ জন, রাজাপুরে ৪টি প্রকল্পে ২৫১ জন, বালিদিয়া ইউপিতে ৬টি প্রকল্পে ৩৫৬ জন, দীঘা ইউপিতে ৪টি প্রকল্পে ২৫৯ জন, বিনোদপুর ইউপিতে ৬টি প্রকল্পে ৫৬৫ জন, নহাটা ইউপিতে ৬টি প্রকল্পে ৩৮৪ জন, পলাশবাড়িয়া ইউপিতে ৬টি প্রকল্পে ৩৬৯ জন ও বাবুখালী ইউপিতে ৬টি প্রকল্পে ৩৬০ জন শ্রমিক কাজ করেছেন। মজুরি হিসাবে প্রত্যেক শ্রমিক দিনে ৪০০ টাকা করে ৪০ দিনে পাবেন ১৬ হাজার টাকা। শ্রমিকরা জানান, অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির কার্যক্রম শুরু হয় ২০১০ সালে। সেই থেকে শ্রমিক হিসাবে নিয়মিত কাজ করে আসছি, মজুরি ঠিকঠাক পেয়েছি। এবার কাজ শেষ হয়েছে প্রায় ছয় মাস, কিন্তু আমাদের পারিশ্রমিক পাইনি। পারিশ্রমিক না পেয়ে ঈদুল ফিতর কেটেছে অনেক কষ্টে। মজুরি না পাওয়ায় সব শ্রমিক পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। টাকা কেন পাচ্ছি না সেটা জানার জন্য প্রতিদিনই আমরা বিভিন্ন অফিসে ঘুরছি কেউ আমাদের সঠিক কোনো কিছু জানাচ্ছে না। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পলাশ মন্ডল বলেন, ‘ইজিপিপি প্রকল্পে আওতায় উপজেলায় ২ হাজার ৬৬১ জন শ্রমিক কাজ করেছে। তাদের কেউ এখনো টাকা পায়নি। প্রথম দফায় ২০ দিন ও দ্বিতীয় দফায় ২০ দিন মোট ৪০ দিনের কাজের বিলের বিবরণী মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এধরনের আরো সংবাদ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA