• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন

×
সংবাদ শিরোনাম :
দেশের বিভিন্ন স্থানে ৫.৪ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত রামপালে কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মা মেয়ে আহত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো “সবুজ পৃথিবীর সন্ধানে” প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান খুলনায় তিনদিনের কর্মসুচি – শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এঁর ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী খুমেক হাসপাতালের সামনে থেকে ৯টি দেশি অস্ত্র উদ্ধার যশোরে মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন “ত্রান চাইনা,টেকসই বেড়িবাঁধ চাই”  সরকার জরুরী ভিত্তিতে বেঁড়িবাঁধ সংস্কার করে জলবন্দি মানুষদের মুক্ত করবে-ভুমিমন্ত্রী  ঘূর্নিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে রয়েছেন সরকার-ত্রান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মহিববুুর রহমান পাউবোর ব্যর্থতায় সহস্রাধিক মানুষের সেচ্ছাশ্রমে মেরামতের পর পরই ভেঙে গেল কয়রার বেঁড়িবাঁধ পরমানু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী খুলনায় ‘দেশের অগ্রগতিতে বিজ্ঞান চর্চা’ শীর্ষক আলোচনা সভা

চট্টগ্রামে যুদ্ধবিমান বিধ্বস্তে পাইলটের মৃত্যু

  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ১০ মে, ২০২৪
  • ১৪ পড়েছেন

ঢাকা অফিস :চট্টগ্রামে বিমান বাহিনীর প্রশিক্ষণ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় অসীম জাওয়াদ নামে এক পাইলট মারা গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার সময় পতেঙ্গা এলাকায় অবস্থিত বানৌজা ঈসা খাঁ হাসপাতালে (নেভি হাসপাতাল) তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। আহত আরেক পাইলট চিকিৎসাধীন। চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (বন্দর) শাকিলা সোলতানা জানান, আজ সকালে উড্ডয়নের সময় বিমান বাহিনীর একটি প্রশিক্ষণ বিমান ট্রেনিং পরিচালনার সময় বিধ্বস্ত হলে বিমানটির পাইলট ও কো-পাইলট প্যারাসুট নিয়ে লাফ দেন। পরে তাদের উদ্ধার করে আহত অবস্থায় বানৌজা ঈসা খাঁ হাসপাতালে (নেভি হাসপাতাল হিসেবে পরিচিত) ভর্তি করা হয়। দুপর ১২টার কিছুক্ষণ পরে অসীম জাওয়াদ নামের এক পাইলট মৃত্যুবরণ করেন। আরেক পাইলট চিকিৎসাধীন। এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার সময় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ওয়াইএকে-১৩০ যুদ্ধবিমানটি উড্ডয়নকালে যান্ত্রিক ত্রæটি দেখা দিলে বিমানটির পেছনে আগুন লাগে। এ সময় বিমানে থাকা দুই পাইলট প্যারাসুট নিয়ে লাফ দেন। বিমানটি চট্টগ্রামের পতেঙ্গা এলাকায় বোট ক্লাবের কাছে কর্ণফুলী নদীতে গিয়ে পড়ে। আইএসপিআর জানায়, বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি ইয়াক-১৩০ (ণঅক ১৩০) প্রশিক্ষণ যুদ্ধবিমান যান্ত্রিক ত্রæটির কারণে চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় দুর্ঘটনায় পতিত হয়েছে। স্কোয়াড্রন লিডার অসীম জাওয়াদ সাভার ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি করে ২০১০ সালে বাংলাদেশ এয়ারফোর্স একাডেমিতে যোগ দেন। ২০১১ সালের ডিসেম্বর মাসে পাইলট অফিসার হিসেবে কমিশন পান। ফ্লাইং ইনস্ট্রাক্টর’স স্কুল অব বিএএফ-এ স্টাফ ইনস্ট্রাক্টর ছিলেন তিনি।পেশাজীবনে কৃতিত্বের জন্য ‘সোর্ড অফ অনার’ পেয়েছেন অসিম জাওয়াদ। ডিআর কঙ্গোতে জাতিসংঘ শান্তি মিশনেও তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন।

ছবি সংগ্রহীত

সংবাদটি শেয়ার করুন

এধরনের আরো সংবাদ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA