×

চিকিৎসা ব্যবস্থাকে দূর্নিতীমুক্ত করতে হবে

  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ৬ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৪৫ পড়েছেন

বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপর থেকে সাধারন জনগন নানা ধরনের অনিয়ম এবং দূর্নিতীর কারনে আস্থা হারাচ্ছে। জেলা ও উপজেলার সরকারী হাসপাতালে বেসরকারী চিকিৎসা সেক্টরের দালাল বেড়েছে। প্রলোভন দেখিয়ে এবং ধোকা দিয়ে নিম্ন মানের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে অসহায় রোগীদের কষ্টার্জিত টাকা। চিকিৎসায় প্রতারিত হয়ে প্রত্যন্ত অঞ্চলের রোগীদের রোগমুক্তি না হয়ে উল্টো জটিলতা তৈরী হচ্ছে। এসকল অসহায় রোগীদের অভিযোগ শোনার কোন জায়গা নেই। এসব অনিয়ম এবং দূর্নিতীর সাথে জড়িতদের শাস্তির আওয়াতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে সরকারকে। সেই সাথে নির্ভূল স্বাস্থ্য সেবা প্রত্যেক নাগরিকের জন্য নিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। সম্প্রতি খুলনাতে মেডিকেল কলেজে ভর্তি কোচিং থ্রি ডক্টরসের উপদেষ্টা ডা. ইউনুস উজ্জামান খান তারিমকে আটক করে সিআইডি। খুলনার একটি কোচিং সেন্টার থেকে তাঁকে আটক করার পর গত একযুগের বেশী সময় ধরে মেডিকেল প্রশপত্র ফাঁস হওয়ার বিভিন্ন তথ্য গনমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। যারা এ ফাঁসকৃত প্রশ্নে মেডিকেলে ডাক্তারি পড়তে চান্স পেয়েছেন, তারা কিভাবে মানবতা নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিবে সাধারন মানুষদের? আর কীভাবেই দূর্নিতীমুক্ত থাকবে? এসব প্রশ্ন সাধারন মানুষদের মনে থেকেই যায়। এসকল দূর্নিতীবাজদের শাস্তির আওয়াতায় আনতে হবে। বাংলাদেশের বর্তমান চিকিৎসা সেক্টরকে দূর্নিতীমুক্ত করতে হবে। সাধারন মানুষের মৌলিক অধিকার চিকিৎসা ব্যবস্থাকে দূর্নিতীমুক্ত করতে হবে। মেডিকেল সেক্টরে দালালি বানিজ্য, কমিশন বানিজ্য এবং মেডিকেল টেষ্টের ভুয়া রিপোর্ট এবং নিম্ন মানের মেডিকেল টেষ্ট এর মতো দূর্নিতীকে রোধ করতে হবে। শহর থেকে গ্রামাঞ্চল পর্যন্ত এসকল মেডিকেল টেষ্টের ধোকাবাজি এবং দূর্নিতী ছড়িয়ে পড়েছে। অসুস্থ হয়ে ডাক্তারের শরনাপন্ন হওয়ার পরও ডায়াগনষ্টিক টেষ্টের কাছে প্রতারিত হচ্ছে অসহায় দরিদ্র রোগীরা। সরকারকে দেশের অভ্যন্তরে গড়ে ওঠা বেসরকারী ডায়াগনষ্টিক এবং ক্লিনিক সেন্টারগুলোতে নজরদারী বৃদ্ধি করতে হবে। পাশাপাশি সরকারী চিকিৎসা ব্যবস্থাকে দালাল মুক্ত করতে হবে। সকল মানুষের চিকিৎসা সেবা পাওয়া মৌলিক অধিকার। এজন্য চিকিৎসা সেক্টরকে অবৈধ বানিজ্যের হাত থেকে সরকারকে রক্ষা করতে হবে। এ সেক্টর নিয়ে যারা দূর্নিতী করছে, তাদেরকে কঠোর পদক্ষেপ নিয়ে দমন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো এবং সংশ্লিষ্ট প্রশাসণকে আরো সচেতন হতে হবে। অপরাধীরা দূরে নয়। চিকিৎসা সেক্টরে নজরদারী বৃদ্ধি করে নির্ভূল চিকিৎসা ব্যবস্থাকে টেকশই করতে হবে সরকারকে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: BD IT SEBA